মধ্যপ্রাচ্যে নিরামিষভোজী থাকবেন যেভাবে

0
5827
ছবি: মিডিলিস্ট আাই এর সৌজন্যে

             

সমগ্র বিশ্বে নিরামিষ খাবার অতি দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। স্বাস্থ্যগত দিক ছাড়াও মানুষ আরও অনেক কারণে নিরামিষ খাবারের দিকে ঝুঁকছেন। যেমন, ধর্মীয় দৃঢ়তা, প্রাণীর কল্যাণের কথা বিবেচনা করে অথবা প্রাকৃতিক সম্পদের অত্যধিক ব্যবহার এড়াতে। তবে আমিষাশী থেকে নিরামিষভোজী হয়ে ওঠার প্রক্রিয়াটি কিন্তু সহজ নয়, বিশেষত আরবীয় ঐতিহ্যবাহী খাবারে অভ্যস্তদের জন্য। আরব বিশ্বের প্রথাগত মাংস কেন্দ্রিক লোভনীয় নানা পদ থেকে নিজেকে সংবরণ করা সত্যিই কঠিন ।

তবে, মিশরীয় খাবারের ব্লগার নদা এলবারশৌমি বলছিলেন মধ্যপ্রাচ্যের রান্নাগুলি নিরামিষ খাবারের জন্য বেশি উপযুক্ত। আরব বিশ্বের পছন্দের কিছু আমিষ খাবার ছেড়ে দেওয়ার বিষয়ে তার অভিজ্ঞতা থেকে কিছু পরামর্শ প্রদান করেছেন তিনি ।

তাহিনী এবং জিরা ড্রেসিং সহ ভুনা ফুলকপি (onearabvegan.com এর সৌজন্যে)

এলবারশৌমি বলছিলেন, আমার বার বছর বয়সে হঠাৎ করে মাংস খাওয়া ​​বন্ধ করতে গিয়ে কিছু নিরামিষ খাবার খাওয়া শুরু করেছিলাম। প্রাণীর প্রতি ভালবাসার জায়গা থেকে আমি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম । বাহরাইনে বেড়ে ওঠার সময়গুলোতে আমাদের বাড়িটি আমরা বিড়াল এবং কুকুরের সাথে ভাগাভাগি করে নিয়েছিলাম ।মধু, ম্যাগি, ব্লেক, রকি এবং ক্লিয়ার এর মতো বিড়াল ও কুকুরগুলো আমার শৈশবের সঙ্গী ছিল। এসব পোষা প্রাণীরা আমাদের পরিবারের সদস্য হয়ে উঠেছিল যাদেরকে আমরা সম্মিলিতভাবে যত্ন নিতাম ।

একবার একজন কৃষকের জীবিত শূকরকে টুকরো টুকরো করে কাটার বিভৎস একটি গল্প পড়ার পর আমার মনে হয়েছিল যে, আমি আর কখনও বোধহয় মাংস খেতে পারবো না-

নদা এলবারশৌমি

যদিও মাংস বেশ কয়েকটি ধর্মীয় উদযাপনের সাথেও নিবিড়ভাবে জড়িত। মিশরে কপটিক খ্রিস্টানরা মাংস এবং মিশরীয় ফাত্তাহ (ঐতিহ্যবাহী ভাতের পদ, মাংস এবং ক্রিস্পি ফ্ল্যাটব্রেডের খাবার) খাওয়ার মাধ্যমে ইস্টার ডে উদযাপন করে। মিশরীয় মুসলমানরাও  ঈদুল আযহার জন্য মাংসের পদ প্রস্তুত করে। বিশ্বব্যাপী প্রায় ১.৮ বিলিয়ন মুসলমানদের দ্বারা কোরবানির উৎসব পালন করা হয় যার মূল কেন্দ্রবিন্দু থাকে ধর্মীয়ভাবে পশু কোরবানি করা।

স্থানান্তর প্রক্রিয়া

নিরামিষভোজী হিসেবে জীবন শুরু করাটা সহজ ছিল না, তবে আমি নিজের কাছে একটি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম এবং এটি স্থায়ী হবে তা নিশ্চিত করতে চেয়েছিলাম।সর্বোপরি, এমন একটি অঞ্চলে যেখানে কাবাব, কিব্বে এবং মেষশাবক টাগিনিস সর্বব্যাপী, সেখানে মাংস ছেড়ে দেওয়া যথেষ্ট কঠিন, তবে এটা অসম্ভব নয়।

নিরামিষভোজী হওয়ার এক মাস পরে,আমি আগের চেয়ে ভাল অনুভব করি, আমার সাইনোসাইটিসের সমস্যা কমে যায়, সহজেই শ্বাস নিতে পারি এবং যার ফলস্বরূপ ঘুম ভালো হচ্ছিলো, ত্বক ও পেট পরিষ্কার ছিল।

আমি যা শিখেছি

শুরুতে নিজেকে লেবেল করা এড়িয়ে চলুন।গবেষণা করুন যে, আপনি আত্মবিশ্বাসের সাথে এই জাতীয় প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবেন: ‘আপনি কোথা থেকে আপনার প্রোটিন পাবেন? এবং ওহ, তবে আপনি মাছ খান, তাই না? এবং জনপ্রিয় যুক্তি: তবে সৃষ্টিকর্তা আমাদের খাদ্য হিসেবে মাংস দিয়েছেন, আপনি কেন এমন বরকত অস্বীকার করবেন?’

যদি কেউ প্রকৃতপক্ষে আপনার জীবনধারা সম্পর্কে আরও জানতে চান তবে আপনি তাদের জন্য উদ্ভিদভিত্তিক ডায়েটগুলি দেখতে, উদ্ভিদভিত্তিক ডায়েটগুলিতে কোনও একাডেমিক নিবন্ধ ইমেল করতে পারেন। কোনও নিরামিষ ডায়েট কীভাবে বৈচিত্র্যময় এবং সন্তোষজনক হতে পারে তা জানানোর একটি দুর্দান্ত উপায় হল রান্না। একবার কেউ যদি নিজেই বুঝতে পারেন যে সুস্বাদু নিরামিষ খাবার প্রস্তুত করা কতটা সহজ, তখন তার পক্ষে এটি গ্রহণ করা আরও সহজ।

এলবারশৌমি যখন যুক্তরাজ্যে পড়াশোনা করছিলেন তখন তার মায়ের রান্নার অনুপস্থিতি তাকে অনুপ্রাণিত করেছিল তার নিরামিষাশী খাবারের ব্লগ onearabvegan.com) চালু করতে। (সৌজন্যে :onearabvegan.com)

বিটরুট হিউমাসের একটি লোভনীয় বাটি, বা পালং শাক এবং ছোলা মাখানো সুগন্ধি কুমড়ো কিব্বে দেখে কে নিজেকে সংবরন করতে পারবে? শেষ অবধি, আপনি যা প্রচার করেন তা অনুশীলন করতে ভুলবেন না।

জাগরণ

দুবাই ভিত্তিক সিরিয়ান ইউটিউবার ইব্রাহিম রামজাত তার জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেলের একটি পর্বে বলেছেন যে, তিনি নিরামিষভোজীতে রূপান্তরিত হওয়ার পর মানুষের প্রতিক্রিয়া দেখে অবাক হয়ে গিয়েছিলেন।

‘লোকেরা আমার উপর আক্রমণ করেছিল, আমাকে বিদ্রূপ করেছিল, আমাকে বলেছিল যে আমি যদি পশুর পণ্য না খাই তবে মরে যাব। আমি যখন স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে শুরু করলাম, তখন মানুষের কাছ থেকে কিছু প্রতিরোধের সম্মুখীন হই ।কিন্তু, গত পাঁচ বছরে বাহরাইন, সৌদি আরব, কুয়েত এবং লেবাননসহ বেশ কয়েকটি দেশে ইতোমধ্যে পুরো অঞ্চলটিতে নিরামিষাশীদের রেস্তোরাঁ ছড়িয়ে পড়েছে। বিশ্বের এখন বৃহত্তম নিরামিষাশী রেস্তোরাঁটির অবস্থান দুবাইয়ে।

আরো পড়ুনকপ২৬: কার্বন কমানোর সম্মেলনে পরিবেশিত হচ্ছে অধিক কাবর্নযুক্ত খাবার!‘পন্ডু স্যুপ’ যেভাবে একটি শরণার্থী পরিবারের বন্ধন হয়ে উঠেছিল

মিশরীয় জনপ্রিয় রাজনৈতিক ব্যঙ্গাত্মক ব্যাসেম ইউসুফ ‘প্ল্যান্ট-বি’ নামে উদ্ভিদভিত্তিক ডায়েটের একটি ইউটিউব শো সঞ্চালনা করেন। প্ল্যান্ট বি-এর চার মিলিয়নেরও বেশি ভিউ রয়েছে।

ভ্রমণকারীদের জন্য পরামর্শ

মধ্যপ্রাচ্যে নিরামিষ-কৌতূহলী ভ্রমণকারীদের জন্য সুসংবাদ রয়েছে।সাধারণ আরব পরিবারের মাংস কেন্দ্রিক খাদ্য থাকার সত্ত্বেও, মধ্যপ্রাচ্যের রান্না নিজেই অবিশ্বাস্যভাবে বৈচিত্র্যময়।এখানে সুস্বাদু এবং পুষ্টিকর খাবারগুলো নিরামিষ হয়ে থাকে ।

এলবারশৌমি তার ব্লগে নিরামিষাশ-বান্ধব মধ্য প্রাচ্যের খাবারের রেসিপি পোস্ট করেছেন (onearabvegan.com এর সৌজন্যে)

প্রায় যেকোনও আরবীয় রেস্তোরাঁতে নিরামিষ মেজে, সালাদ এবং স্যুপের একটি সুনির্দিষ্ট পদ পরিবেশন করা হয়। যেমন, ফালাফেল, ফুল (ফাভা মটরশুটি), হুমমাস, বাবা ঘানৌশ, স্টাফযুক্ত লতা পাতা, মশলাদার আলু, ট্যাবোলিহ, ফ্যাটৌশ, রকেট সালাদ বা মসুরের ডালের একধরণের স্যুপ খাদ্য তালিকায় থাকবেই।

আপনি যদি মিশরে থাকেন তবে কোশরি খেতে পারেন। কোশরি হলো একটি জনপ্রিয় পদ, যা চাল, পাস্তা, মসুর, ছোলা, ভাজা পেঁয়াজ এবং একটি পোড়ানো টমেটো সসের মিশ্রণে তৈরি।

নিরামিষভোজীদের খাবারগুলি খুঁজে পেতে সহায়তা করার জন্য রয়েছে ‘হ্যাপি কাউ’ ওয়েবসাইট, যেখানে বিশ্বের যেকোনও বড় শহরের নিরামিষ রেস্তোরাঁগুলির তালিকা এবং পর্যালোচনা যুক্ত থাকে।

সহজবোধ্য রাখুন

এলবারশৌমির মতে, নিরামিষভোজী থাকার মূল কাজটি হলো অভ্যাসটি দীর্ঘমেয়াদে বজায় রাখা।ধীরে ধীরে আপনার ডায়েটে ছোট ছোট পরিবর্তন আনা শুরু করুন।আপনার শরীরের কোনও নতুন খাদ্যাভ্যাসকে সামঞ্জস্য হতে সময় দিন। প্রাণিজাত পণ্যগুলি বাদ দেওয়ার আগে আপনার ডায়েটে ফল, শাকসবজি, গোটা শস্য, মটরশুটি, শিম, বাদাম এবং বীজের মতো জিনিসগুলিকে যুক্ত করা শুরু করুন।প্রাকৃতিক খাবার চয়ন করুন এবং অতিরিক্ত জটিল রেসিপিগুলি এড়িয়ে চলুন।

এলবারশৌমি বলছিলেন, ‘বিশ্বজুড়ে খাদ্য কেবল একটি খাদ্যতালিকা ছাড়াও আরও অনেক বিষয়কে প্রতিনিধিত্ব করে। আমাদের ঐতিহ্য এবং ইতিহাসের সঙ্গে যোগাযোগ করার উপায় এটি।বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যে, এটি আমাদের পারিবারিক জমায়েতের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে থাকে।তাই সময় নিন, পরিবারও আপনার পছন্দের জীবনযাত্রায় অভ্যস্ত হয়ে উঠবে।

মিডিলিস্ট আই অবলম্বনে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here