শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী, ২০২৩

ইতালিতে অভিবাসনের হার তিনগুণ বেড়েছে

‘এনজিওগুলি জাহাজডুবি হওয়া অভিবাসীদের উদ্ধার করে না বরং পরিবহন করে।’

অভিবাসীদের আশ্রয় দেয়ার প্রক্রিয়া বাস্তবায়নের পরিবর্তে তৃতীয় দেশগুলোতে পুনর্বাসন কেন্দ্র তৈরি করা উচিত। এছাড়া যাদের ইউরোপে প্রবেশের অধিকার আছে, একমাত্র তাদেরই সেখানে ঢুকতে দেওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন ইতালির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারি নিকোলা মোলতেনি।

এদিকে দেশটির সরকারি নথি বলছে, চলতি বছরের শুরু থেকে গত ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত ইতালিত ৯৪ হাজার ৩৪১ জন অভিবাসী প্রবেশ করেছে, যা গত দুই বছর আগের আগমনের সংখ্যার প্রায় তিনগুণ (২০২০ সালে ৩৫ হাজার ৫৪৩ এবং ২০২১ সালে ৬২ হাজার ২১৫)।

দেশটির সংবাদমাধ্যম ইউরোঅ্যাকটিভকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে নিকোলা মোলতেনি তীর্যক ভাষায় এও বলেছেন যে, ‘একটি দেশ এবং একটি গুরুত্বপূর্ণ সরকার, জনগণের ভোটের দ্বারা দৃঢ়ভাবে বৈধ, সেরকম একটি দেশ তার দেশে (অভিবাসীদের) প্রবেশের চাবি বেসরকারি বিদেশী সংস্থার কাছে ছেড়ে দিতে পারে না, যারা বিদেশী এসএআর (সার্স অ্যান্ড রেসকিউ) জলসীমায় হস্তক্ষেপ করে।’

আরো পড়ুন: ইতালিতে ১৬ লাখ মুসলিমের জন্য মাত্র আটটি মসজিদ!

এসময় তিনি অভিযোগ করেন, ‘এনজিওগুলি জাহাজডুবি হওয়া অভিবাসীদের উদ্ধার করে না বরং পরিবহন করে।’

ইউরোঅ্যাকটিভকে দেয়া এ সাক্ষাৎকারে নিকোলা মোলতেনি যুক্তি দিয়ে বলেছেন, ইতালিতে অভিবাসীদের আগমনের গতি পূর্বাভাস দিচ্ছে যে, অভিবাসনের গন্তব্য হিসেবে ইতালি এবং ভূমধ্যসাগরের সীমান্তবর্তী দেশগুলি একটি কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে, যেখানে সবাই প্রবেশ করে এবং কেউ ছেড়ে যায় না।

মোলতেনি বিশ্বাস করেন যে, এই সমস্যার সমাধান হলো সরাসরি তৃতীয় দেশে যেমন লিবিয়া এবং তিউনিসিয়াতে নিরাপদ হটস্পট তৈরি করা, যেখানে আশ্রয়প্রার্থীরা মানবিক করিডোরের মাধ্যমে আবেদন করতে এবং ইউরোপে আসতে পারে। যাদের আসার যোগ্যতা নেই, তাদের অর্থনৈতিক অভিবাসীদের সহায়তায় প্রত্যাবাসনের মাধ্যমে নিজ দেশে ফিরিয়ে দেওয়া উচিত।

আরো পড়ুন: ইতালিতে তরুণ অভিবাসীদের জীবনে রং ছড়াচ্ছে স্ট্রীট আর্ট

তিনি আরো জানান, আফ্রিকান দেশগুলির সঙ্গে প্রয়োজনীয়তা সহযোগিতা আদান প্রদানের মাধ্যমে সবাইকে অবশ্যই ‘‘অবৈধ অভিবাসনের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে এবং যারা ইউরোপে প্রবেশের অধিকারী নয়, তাদের প্রত্যাবাসনের ব্যবস্থা করতে হবে।’’

এদিকে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর দিকে ইঙ্গিত করে মোলতানি বলেছেন, মানবাধিকার সংস্থাগুলিকে অভিবাসীদের অধিকার রক্ষার জন্য হটস্পট তৈরি করা উচিত।

আরো পড়ুন: অভিবাসীদের চাপ সামলাতে ইতালির পাশে জার্মানি

সবমিলিয়ে ক্রমশ বাড়তে থাকা অভিবাসনের ঢেউ সামাল দেয়ার জন্য সময়ক্ষেপন না করে দ্রু ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোকে একযোগে উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে মোলতানি বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই এই পথে চলতে হবে। ইতালি এখন পর্যন্ত একা। আমরা দায়িত্ব, সহযোগিতা এবং চাওয়া-পাওয়াকে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে দেখতে চাই। ইউরোপকে অবশ্যই কথার চেয়ে কাজের দিকে নজর দিতে হবে।’

সূত্র: ইউরোঅ্যাকটিভ

Get in Touch

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Related Articles

অভিবাসীর সঙ্গে থাকুন

10,504FansLike
2FollowersFollow
28SubscribersSubscribe

সাম্প্রতিক ঘটনা